সিলেট

লালাখাল

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অপরূপ লীলাভূমি সিলেটের লালাখাল। সিলেট শহর হতে প্রায় ৩৫ কি.মি. দূরে জৈন্তাপুর উপজেলায় লালাখাল। পাহাড়, নদী, চা-বাগান ও নানা জাতের বৃক্ষের সমাহার এই স্থানটিকে পর্যটকদের কাছে এক বহু কাঙ্খিত ও বহু প্রতীক্ষিত এক স্থান। স্বচ্চ নীল জল রাশি আর দু’ধারের অপরুপ সোন্দর্য, দীর্ঘ নৌ পথ ভ্রমনের সাধ যেকোন ভ্রমণ পিপাসুর কাছে এক দূর্লভ আর্কষণ।

ভ্রমন প্রিয়াসীদের আর্কষিত করার নির্জন মনকাড়া সৌন্দর্য মন্ডিত ভ্রমন স্পট লালাখাল। স্বচ্ছ নীল পানির নদী, অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, নৌ ভ্রমণ, পাহাড়ে ঘন সবুজ গাছ, সব কছু মিলিয়ে প্রকৃতিকে একান্তে অনুভব করতে পারার জন্য বেশ উপযোগী একটি স্থান। বাংলাদেশের সবোর্চ্চ বৃষ্টিপাতের স্থান এটি। নৌপথে যেতে যেতে যে দিকে চোখ যায় মুগ্ধ হতে হবে সবাইকে। ভারতের চেরাপুঞ্জির ঠিক নিচেই লালাখালের অবস্থান। চেরাপুঞ্জি পাহাড় থেকে উৎপন্ন এই নদী বাংলাদেশের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত। তবে পানির নীল রং দেখতে চাইলে শীতের সময়ে যাওয়া ভালো – বর্ষা হলে পানির রং টা তেমন নীল থাকে না।


সারি নদীর স্বচ্চ জলরাশির উপর দিয়ে নৌকা অথবা স্পীডবোটে করে আপনি যেতে পারেন লালা খালে। যাবার পথে আপনির দুচোখ সৌন্দর্য দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে যাবেন কিন্ত সৌন্দর্য শেষ হবে না। ৪৫ মিনিট যাত্রা শেষে আপনি পৌছে যাবেন লালখাল চা বাগানের ফ্যাক্টরী ঘাটে। মুগ্ধ দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকবেন নদীর পানির দিকে। কি সুন্দর নীল, একদম নীচে দেখা যায়। ভারতের চেরাপুঞ্জির ঠিক নিচেই লালাখালের অবস্থান। চেরাপুঞ্জি পাহাড় থেকে উৎপন্ন এই নদী বাংলাদেশের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত।

কিভাবে যাওয়া যায়:
সিলেট শহর হতে লালাখাল যাবার জন্য আপনাকে পাড়ি দিতে হবে ৩৫ কি.মি রাস্তা। আপনি অনেক ভাবে লালাখাল যেতে পারেন। বাস, মাইক্রো, টেম্পু যোগে আপনি যেতে পারেন। সিলেটে থেকে জাফলং যাবার বাসে উঠে সারি নদীর ব্রীজের কাছে নামতে হবে.. সেখানে নেমে সারি নদীর উৎস মুখে গেলে সেটাই লালা খাল নামে পরিচিত। সেখান থেকে ইঞ্জিন চালিত নৌকা কিংবা স্পিড বোট নিয়ে ঘুরে দেখবেন অপরূপ নীল জলরাশির লালাখাল- বাংলাদেশের “কালার অব প্যারাডাইস”। নৌকা ভাড়া ৮০০ টাকা, স্পিড বোট ভাড়া ১৫০০-২০০০ টাকা। ইঞ্জিন চালিত নৌকায় ৪৫ মিনিট এর নৌ ভ্রমণ। নৌকায় কমপক্ষে ১৫- ২০ জনের বসার ব্যবস্থা আছে, ভাড়া একই। একা যাওয়া কস্টকর হবে। নৌকা ভাড়া রিজার্ভ নিলে ১৫০০ টাকা। আর লোকাল নৌকা সবসময় পাওয়া যায়না।

তবে সারা দিনের জন্য একটি মাইক্রেবাস বা প্রাভেট কার ভাড়া নিলে ভালো হয়। বেশী লোক হলে মাইক্রো ভাড়া নেয়া ভালো। এতে খরচ টা কম হবে। মাইক্রোর ভাড়া ২০০০-২৫০০ টাকা, কার এর ভাড়া ১৫০০-১৬০০ টাকা। খুব ভোরে যদি সিলেট থেকে রওয়ানা দেয়া যায়, তবে লালাখাল দেখে বিকেলটা জাফলং এ কাটাতে পারবেন। সিলেট থেকে জাফলং সড়কের গোয়াইন ঘাট নামতে হবে।

লালাখালের যেখানে নৌযান ভিড়বে ওখানেই আছে খুব সুন্দর এক চা বাগান সহ ফ্যাক্টরি । বাগানটিও খুব পরিচ্ছন্ন এবং সুন্দর।

থাকবেন কোথায়:
লালাখালের আশেপাশে থাকার তেমন কোন সুবিধা নাই। সাধারনত পর্যটকরা সিলেট শহর হতে এসে আবার সিলেট শহরে হোটেলে রাত কাটায়। সাম্প্রতিক নাজিমগড় রিসোর্ট নামে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠান আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত পিকনিক স্পট গড়ে তোলার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

0.00 avg. rating (0% score) - 0 votes
Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close