আমাদের কথা

ঘুরতে পছন্দ করেন? কিন্তু সব সময়েই পকেট টানটান! ঠিকমতো ঘুরতে যাওয়ার জন্য দরকার সঠিক পরিকল্পনা। তাহলে সাধ্যের মধ্যেই সবটুকু সুখ ধরা দেবে। এর জন্য বেশি বেশি ঘোরার অভ্যাস গড়ে তুলুন, তাহলে কোন সময়ে কোথায় ঘুরতে যাওয়াটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে, সেই শর্টকাট মুখস্থ হয়ে যাবে। ভ্রমণ যত বাড়বে, জ্ঞানও তত বাড়বে। চলুন, ভ্রমনপ্রিয় এর মাধ্যমে জেনে নিই কিছু গুরুত্বপুর্ন তথ্য ।

হোটেলের বিস্তারিত খোঁজ নিন

ঘুরতে যাওয়ার আগে থাকার ব্যবস্থাটা তো নিশ্চিত করতে হবে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ফোনে হোটেলের রুম বুকিং দেওয়া হয়ে থাকে। তার পরও যদি খরচ বাঁচাতে চান বা নিজের সাধ্যের মধ্যেই আরও ভালো থাকতে চান, তাহলে খোঁজ রাখুন কখন কোথায় কী ভালো অফার আছে। হোটেলে বুকিং দেওয়ার আগে খোঁজ নিন, সেখানে আপনার পরিচিত কেউ আগে থেকেছে কি না! তাহলে তাঁর কাছ থেকে রুম এবং সেবা সম্পর্কে কিছু টিপস পেয়ে যাবেন। রুমে ওঠার আগে আরেকবার খোঁজ নিন, আপনি যে সময় রুমে উঠছেন, সে সময়ে আপনার বুকিং দেওয়া রুমের চেয়ে ভালো কোনো রুম ফাঁকা আছে কি না! ফাঁকা থাকলে সেটাতেই উঠুন না। হোটেলের কর্মীরা হয়তো বেমালুম ভুলেই গেছেন। তাদের মনে করিয়ে দিতে হবে তো! কারণ, আরামে থাকার দরকারটা যে আপনার।

বেশি বেশি ভ্রমণ করুন

বেশি বেশি ভ্রমণের অভ্যাস গড়ে তুলুন। আখেরে লাভ আপনারই হবে। অভিজ্ঞতা আপনার ভ্রমণের খরচ কমিয়ে আনবে। তা ছাড়া বিমান পরিবহন সংস্থাগুলোর বিভিন্ন সময়ে নানা অফার থাকে নিয়মিত যাত্রীদের জন্য। ব্রোঞ্জ, সিলভার, প্ল্যাটিনাম এ রকম কত কিছু! শুধু আকাশপথ নয়, সড়কপথেও এ রকম অফার পেয়ে যাবেন হরহামেশা। মোদ্দাকথা, নিয়মিত যাত্রীদের সবাই সব সময় খুশিই রাখতে চায়। একই মুখ বারবার দেখিয়ে হয়তো আপনিই হয়ে উঠতে পারেন অফারের উপলক্ষ।

অফ সিজনের ভ্রমণ

ছুটি পেলেই ঘুরতে যাওয়ার হিড়িক পড়ে যায়। আর বাকি সময়গুলোতে হোটেলগুলোতে যেন চলে মাছি মারা উৎসব। ঈদ বা লম্বা ছুটি ছাড়া সারা বছরই কিন্তু ঘোরার সুযোগ থাকে। নিরিবিলি নির্ঝঞ্ঝাট ভ্রমণ চাইলে অফ সিজনে ঘুরতে যান। দেশের বাইরে যেতে চাইলে বেশ কিছু তথ্য জেনে রাখতে পারেন। শীতের সময় থাইল্যান্ড, গ্রীষ্মে ইন্দোনেশিয়ার বালি এবং মে অথবা সেপ্টেম্বরে ইউরোপ ঘুরতে যেতে পারেন। তাহলে কম পয়সায় ভালো একটা সফর দিতে পারবেন। ভিড়বাট্টার ঝামেলাও পোহাতে হবে না।

Close